+1 টি ভোট
20 জন দেখেছেন
"ফ্রিল্যান্স এবং আউটসোর্সিং" বিভাগে করেছেন (1,025 পয়েন্ট) 4

1 উত্তর

+1 টি ভোট
করেছেন (733 পয়েন্ট)
 
সেরা উত্তর

সাবস্ক্রাইব বাড়াতে 

  • চ্যানেলের একটি ভালো থিম দিন
  • অসাধারণ কনটেন পোস্ট করুন।
  • আপনার ভিডিওর মান বাড়াতে প্রোডাকশন কোয়ালিটি ভালো করুন।
  • কিছু এভারগ্রিন,অনন্য ভিডিও পোস্ট করুন।
  • আপনার ভিডিওটি যেন দেখতে সুন্দর ও সহজ  হয় তা নিশ্চিত করুন।

ভিউ বাড়াতে 

     প্রথমে আপনাকে কোয়ালিটি সম্পন্ন ভিডিও বানাতে হবেযার সাউন্ড স্পষ্ট হবে এবং গ্রাফিক্সের কাজ হবে প্রফেশনালমানের।কি-ওয়ার্ড গবেষনা: আপনার ভিডিও ইউটিউব এর র্সাচে টপে চলেআসার সবচেয়ে গুরুত্বর্পূণ ভূমিকা হলো সঠিক কি-ওয়ার্ড গবেষনা।তাই সঠিকভাবে কি-ওয়ার্ড গবেষনা করে, কি-ওয়ার্ড নির্বাচন করুন। টাইটেল: ভিডিওতে কি-ওয়ার্ড রিলেটেড টাইটেল ব্যবহারকরবেন, তবে ৫০-৬০ ওয়ার্ডের আকর্ষণীয় টাইটেল লিখবেন।কারন- আপনার ভিডিওর আকর্ষণীয় টাইটেলই ভিউ নিয়ে আসবে।সাবটাইটেল: ভিডিওতে কি-ওয়ার্ড রিলেটেড সাবটাইটেল অবশ্যইব্যবহার করবেন। ডেসক্রিপসান: যতটা পারেন ডেসক্রিপসান বড় করে দিতে চেষ্টাকরবেন। কেননা, ইউটিউব ৫০০০ শব্দের ডেসক্রিপসান দেওয়ার সুযোগ রাখছে সেখানে আপনি ১০০০-১৫০০ শব্দেরডেসক্রিপসান দিতে পারবেন না। দিতেই হবে বলছি না, তবে দিতেচেষ্টা করবেন, এটা আপনার ভিডিও টপে আসতে খুবই সাহয্যকরবে। আর ডেসক্রিপসানে আপনার নির্বাচিত টাইটেল ব্যবহারকরতে ভূলবেন না। ট্যাগ: ভিডিওতে কি-ওয়ার্ড রিলেটেড ৮-১০ ট্যাগ ব্যবহার করবেন,এমনকি টাইটেলও ট্যাগ হিসেবে একবার ব্যবহার করবেন।থাম্বনাইল: কি-ওয়ার্ড রিলেটেড প্রফেশনাল মানের আকর্ষণীয়থাম্বনাইল ব্যবহার করবেন। সময় ঠিক করুন: সব সময় চেষ্টা করবেন নির্ধারিত সময়ে আপনারচ্যানেলে ভিডিও আপলোড করতে। নির্ধারিত সময়ে আপলোডহলে এস. ই. ও এবং ইউজার এ দুটোর জন্যই বেশ ভাল। অ্যানোটেশান: ভিডিও শুরুর ২৫-৩০ সেকেন্ডের মধ্যে একটাঅ্যানোটেশান দিবেন এবং ভিডিওর শেষে আরো ৪-৫অ্যানোটেশান দিয়ে দিবেন। তখন ইউজার আপনার ভিডিও নাকেটে ঐ ভিডিওগুলোতে যাওয়ার একটা সুযোগ থাকে আরএভাবে আপনার ভিডিওর ভিউ বাড়তে থাকবে। ইন্ট্রো ভিডিও: আপনার চ্যানেলে অবশ্যই একটা ইন্ট্রোভিডিও দিবেন। এটা যেমন আপনার চ্যানেলের অথোরিটিঅর্জনের ক্ষেত্রে সাহায্য করবে ঠিক তেমনি চ্যানেলেরসাবস্ক্রাইভারও বাড়িয়ে দিবে। আর চ্যানেলের সাবস্ক্রাইভার বাড়বেমানে ভিউও বাড়বে। ব্লগিং: আপনার ভিডিওতে ভিউ বাড়ানোর আরেকটা উপায় হলো, কি-ওয়ার্ড রিলেটেড ওয়েবসাইট বা ব্লগসাইট খুলে আপনি আপনারভিডিওটি এম্বেড করে টিউন করুন। তাছাড়াও আপনি কি-ওয়াডরিলেটেড বিভিন্ন টিউন করুন, তাতেও ভিউ বাড়বে। টিউমেন্ট করুন: আপনার ভিডিওর কি-ওয়াড অনুযায়ী টপে থাকাভিডিওগুলোতে টিউমেন্ট করুন, কিন্তু সেখানে স্পাম করবেন না।১-২ লাইনের ভালো টিউমেন্ট করবেন। ইনফর্ম করুন: আপনার ভিউয়ারদের অবশ্যই ইনফর্ম করুন, তারা যেনসম্পন্ন ভিডিওটা দেখে এবং লাইক অথবা ডিজলাইক করে। কারনভিডিওতে যখনই লাইক, ডিজলাইক ও টিউমেন্ট পড়ে তখনই ভিডিওপপুলার হয়, আর এটা ইউটিউব সার্চ এ প্রাধন্য পায়। উত্তর দিন: আপনার ভিডিওতে ভিউয়ারদের দেওয়া টিউমেন্টেরউত্তর যত দ্রুত সম্ভব দিবেন। এতে ভিউয়ারা বোঝবে যে আপনি তাদের প্রতি আন্তরিক, তেমনি ইউটিউব ও বোঝবে যে আপনিভিউয়ারদের প্রাধন্য দেন। সোশ্যাল শেয়ার: ভিডিও ভিউর জন্য সোশ্যাল মিডিয়া শেয়ারসবচেয়ে বেশী গুরুত্বপূর্ন। তাই যত পারেন, সকল সোশ্যালমিডিয়াতে আপনার ভিডি ও শেয়ার করবেন। সবকিছু ঠিকঠাক ভাবে করতে পারলে অবশ্যই আপনার ভিডিওতে ভিউহবে আর না হয়ে যাবে কোথায় ভিউ তো হতেই হবে।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

0 টি ভোট
1 উত্তর
0 টি ভোট
1 উত্তর
28 এপ্রিল "যৌন" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন অজ্ঞাতকুলশীল

251 টি প্রশ্ন

199 টি উত্তর

28 টি মন্তব্য

25 জন সদস্য

ই প্রশ্ন ডটকম হল মাতৃভাষায় সহজে সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য অনলাইন মাধ্যম। যেখানে আমাদের দৈনন্দিন জীবনে বিভিন্ন ধরনের কৌতুহল মূলক অজানা প্রশ্ন জিজ্ঞাসা ও উত্তর খুজে পাওয়ার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে, নির্বিশেষে সহজে সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে তোলায় দৃড় অঙ্গীকার বদ্ধ।

বিঃদ্রঃ ই প্রশ্ন তে প্রকাশিত সকল প্রশ্ন, উত্তরের দায়ভার একান্তই ব্যবহারকারীর নিজের, এক্ষেত্রে কোন প্রশ্নোত্তর কোনভাবেই ই প্রশ্ন এর হস্তক্ষেপ নাই।

...